এবার রওশনের নেতৃত্বে নতুন পার্লামেন্টারি বোর্ড ঘোষণা

এবার রওশনের নেতৃত্বে নতুন পার্লামেন্টারি বোর্ড ঘোষণা

ঢাকা: রওশন এরশাদকে দলের চেয়ারম্যান ঘোষণা করার পর এবার তাকে আহ্বায়ক করে জাতীয় পার্টির ১৩ সদস্যের নতুন পার্লামেন্টারি বোর্ড গঠনের ঘোষণা করা হয়েছে। বোর্ডের সদস্য সচিব রাখা হয়েছে দলের মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গাঁকে। বোর্ডে রাখা হয়েছে দলের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসা জিএম কাদেরকেও।

জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মৃত্যুর পর তার সংসদীয় আসন রংপুর-৩-এর উপনির্বাচনে দলীয় প্রার্থী মনোনয়ন দিতে কাজ করবে এই বোর্ড।

বৃহস্পতিবার (৫ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ সারাবাংলাকে নতুন এই পার্লামেন্টারি বোর্ড গঠনের তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে, গত ২৪ আগস্ট এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, রংপুর-৩ শূন্য আসনের উপনির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী মনোনয়নের জন্য আট সদস্যের পার্লামেন্টারি বোর্ড গঠন করা হয়েছে। পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদেরকে আহ্বায়ক ও পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গাঁকে সদস্য সচিব করে ওই বোর্ড গঠনের ঘোষণা দেওয়া হয়। তবে ওই বোর্ডে স্থান পাননি রওশন এরশাদ।

রওশন এরশাদের অনুসারী নেতারা জানান, পার্টির গঠনতন্ত্রের ২১ ধারা অনুযায়ী এই পার্লামেন্টারি বোর্ড গঠন করা হয়েছে। রাঙ্গাঁ ও জিএম কাদের ছাড়াও ১৩ সদস্যের এই মনোনয়ন বোর্ডে স্থান পেয়েছেন দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, সাবেক মহাসচিব রুহুল আমিন হওলাদার, মুজিবুল হক চুন্নু, কাজী ফিরোজ রশিদ, অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন খান, গোলাম কিবরিয়া টিপু, ফখরুল ইমাম, সুনীল শুভ রায়, আতিকুর রহমান আতিক ও মজিবুর রহমান সেন্টু।

জানা গেছে, রওশন এরশাদকে দলের চেয়ারম্যান ঘোষণা করতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনের পরপরই দলের প্রেসিডিয়াম সদস্যদের উপস্থিতিতে এই পার্লামেন্টারি বোর্ড গঠন করা হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক রওশন এরশাদের অনুসারী এক নেতা  বলেন, আমরা জিএম কাদেরকে চেয়ারম্যান মানি না। তবে তিনি পার্টির বাইরের কেউ নন, তিনি পার্টির কো-চেয়ারম্যান। তাই পদাধিকারবলে তিনি পার্লামেন্টারি বোর্ডে থাকবেন, সেটাই স্বাভাবিক।

এরশাদের মৃত্যুর পর থেকেই মূলত জাতীয় পার্টিতে নেতৃত্ব নিয়ে সংকট দেখা দেয়। মৃত্যুর আগে এরশাদ এক সংবাদ সম্মেলনে বলে গিয়েছিলেন, তার অবর্তমানে দলের চেয়ারম্যান হবেন জিএম কাদের। সেই অনুযায়ী এরশাদের মৃত্যুর পর জিএম কাদেরকে দলের চেয়ারম্যান ঘোষণা করেন মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গাঁ। তবে রওশন এরশাদের অনুসারীরা এ ঘোষণাকে মেনে নিতে পারেননি। তাদের দাবি, দলের প্রেসিডিয়াম সদস্যরা আলোচনা করে চেয়ারম্যান নির্ধারণ করবেন।

এদিকে, জিএম কাদের নিজেদের সংসদে বিরোধী দলীয় নেতা করার জন্য স্পিকার বরাবর চিঠিও পাঠান। রওশন অনুসারীরা এর বিরোধিতা করে বলেন, রওশন ছিলেন বিরোধী দলীয় উপনেতা। এরশাদের অবর্তমানে তিনিই হবেন বিরোধী দলীয় নেতা। জিএম কাদের স্পিকারকে চিঠি পাঠানোর একদিন পর রওশন এরশাদের অনুসারীরা তাকে চেয়ারম্যান ঘোষণা করেন। পরে স্পিকার বরাবর চিঠি পাঠান রওশন। তাতে বলা হয়, জিএম কাদেরকে বিরোধী দলীয় নেতা ঘোষণার চিঠি যেন আমলে নেওয়া না হয়।

আপনার মতামত লিখুন :
error0



এই বিভাগের আরো খবর